-->

বাউল ভক্তিগীতি Baul Bhakti Geeti | Bhakti Baul Sangeet in Bengali

বাউল শিল্পী বা বাউল সাধক বা বাউল একটি বিশেষ ধরণের গোষ্ঠী ও লোকাচার সঙ্গীত পরিবেশক, যারা গানের সাথে সাথে সুফিবাদ, দেহতত্ত্ব প্রভৃতি মতাদর্শ প্রচার করে থাকে। বাউল সাধক বাউল সঙ্গীত পরিবেশন করে থাকে। বাউল গান পঞ্চবিংশ শতাব্দীতে লক্ষ্য করা গেলেও মূলত কুষ্টিয়ার লালন সাঁইয়ের গানের মধ্য দিয়ে বাউল মত পরিচিতি লাভ করে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের নিকট। 

 

Baul Bhakti Geeti

 বাউলদের সাদামাটা জীবন ধারণ ও একতারা বাজিয়ে গান গেয়ে গ্রামে গ্রামে ঘুরে বেড়ায়। ২০০৫ খ্রিষ্টাব্দে ইউনেস্কো বিশ্বের মৌখিক এবং দৃশ্যমান ঐতিহ্যসমূহের মাঝে বাউলদের বাউল গানকে অন্যতম শ্রেষ্ঠ সম্পদ হিসেবে ঘোষণা করে।

বাউল ভক্তিগীতি (Baul Bhakti Geeti)

ধর্ম্ম পথে থাকি কর জীবন যাপন ভাই। 

হরিনাম কর সদা (ওরেও ভাই) হরি বিনা বন্ধু নাই৷ 

যে কোন ব্যবসা ধরি, জীবন নির্ব্বাহ করি 

বল মুখে হরি হরি, এইমাত্র ভিক্ষা চাই, 

গৌরাঙ্গ চরণে মজ, অন্য অভিলাষ ত্যজ, 

ব্রজেন্দ্র নন্দন ভজ, তবে বড় সুখ পাই ৷

দুই


বাউল বাউল বলছ সবে, হচ্ছে বাউল কোন জনা। 

দাড়ি চূড়া দেখিয়ে (ও ভাই) করছে জীবকে বঞ্চনা৷ 

দেহতত্ত্ব—জড়ের তত্ত্ব, তাতে কি ছাড়ায় মায়ার গর্ত? 

চিদানন্দ পরমার্থ, জানতে ত’ পারবে না৷ 

যদি বাউল চাওরে হতে, তবে চল ধৰ্ম্মপথে, 

ঘোষিৎসঙ্গ সৰ্ব্বমতে, ছাড় রে মনের বাসনা ৷৷ 

বেশ ভূষা-রঙ্গ যত, ছাড়ি নামে হওরে রত, 

নিতাই চাঁদের অনুগত, হও ছাড়ি সব দুৰ্ব্বাসনা ৷ 

মুখে হরে কৃষ্ণ বল, ছাড়রে ভাই কথার ছল,

নাম বিনা ত’ সুসম্বল, চাঁদ বাউল আর দেখে না৷


তিন

মানুষ ভজন করছো (ও ভাই) ভাবের গান ধরে। 

গুপ্ত করে রাখছো ভাল, ব্যক্ত হবে যমের ঘরে৷

মেয়ে হিজ্‌ড়ে, পুরুষ খোজা, তবে ত হয় কৰ্ত্তাভজা 

এই ছলে করছো মজা, মনের প্রতি চোখ ঠেরে ।। 

 গুরু সত্য বলছো মুখে, আছ তো ভাই জড়ের সুখে

 সঙ্গ তোমার বর্হিমুখে, শুদ্ধ হবে কেমন করে?? 

যোষিৎসঙ্গ অর্থলোভে, মজে তো জীব চিত্ত ক্ষোভে

বাউলে কি সে সব শোভে আগুন দেখে ফড়িং মরে ৷৷

 চাঁদ বাউল মিনতি করি বলে ও সব পরিহরি

 শুদ্ধভাবে বল হরি, যাবে ভবসাগর পারে ৷

চার

এও ত’ এক কলির চেলা। 

মাথা নেড়া, কপ্নি পরা, তিলক নাকে, গলায় মালা ৷৷

বৈষ্ণবের মত দেখতে আসক্ত শাক্ত কাজের বেলা। 

সহজ ভজন করছেন মামু, সঙ্গে লয়ে পরের বালা ॥ 

সখী ভাবে ভজছেন তারে, নিজে হয়ে নন্দলালা। 

কৃষ্ণদাসের কথার ছলে, মহাজনকে দিচ্ছে শালা ৷৷ 

নব-রসিক আপনে মানি, খাচ্ছেন আবার মনকলা। 

বাউল বলে দোহাই ও ভাই, দুরকর এ লীলাখেলা ৷৷

Read This: বিপত্তারিণীর ব্রতকথা PDF সহ

You May Like Also Also Like This

Post a Comment

0 Comments